Header Ads

Header ADS

স্বপ্নভঙ্গ চাঁদের বুকে আছড়ে পড়েছে বিক্রম, আশঙ্কা ইসরোর

শেষ অবধি শেষের ১৩ মিনিটেই তীরে এসে তরী ডুবল? চন্দ্রযান-২ এর বিক্রম ল্যান্ডার যে সময় চাঁদের মাটিতে নামার কথা, সেই সময় অতিক্রান্ত হওয়ার পরও যোগাযোগ করা যাচ্ছে না তার সঙ্গে।
যেহেতু এই অবতরণ প্রক্রিয়া একেবারেই স্বয়ংক্রিয়, এখানে কোনোরকম হস্তক্ষেপের
সুযোগও নেই।

শেষ পর্যন্ত জানা গেল, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তার গতিবেগ কমাতে পারে নি বিক্রম। যার ফলে সফট ল্যান্ডিং হয় নি বলে মনে করা হচ্ছে। পাশপাশি জানা যাচ্ছে, ঘন্টায় প্রায় ৬ হাজার কিমি গতিবেগে
চাঁদের ভূপৃষ্ঠে আছড়ে পড়েছে চন্দ্রযানের ল্যান্ডার। যেখানে ৭ কিমি গতিবেগ থাকার প্রয়োজনীয়তা ছিল।


শুক্রবার সারাদিন গোটা দেশ অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে ছিল। বিজ্ঞানীরা জানতেন, শেষ পনেরো মিনিটের ঝক্কি পোহালেই, সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছে যাবে ভারতের মহাকাশবিজ্ঞান।
ইতিমধ্যে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা জানিয়ে দিয়েছিল শুভেচ্ছা বার্তা। ভারত থেকে মহাকাশে কম্যান্ড পৌঁছনো মাত্রই কাজ শুরু করে ল্যান্ডার। কিন্তু শেষ চারশো মিটার, যাকে বলা হয় ‘ফাইন ব্রেকিং ফেজ’, সেখানেই বাঁধল গোলমাল।
এর আগে বৃহস্পতিবার কলকাতার বিড়লা তারামণ্ডলের অধিকর্তা দেবীপ্রসাদ দুয়ারী বলেছিলেন, “চন্দ্রযান ২ এর প্রতিটা মুহূর্ত, প্রতিটা পদক্ষেপ গুরুত্বপূর্ণ।
অনেক হিসেব নিকেশ করার মাধ্যমেই এগিয়ে চলেছে চন্দ্রযান। মহাকাশ থেকে সে যা তথ্য পাঠাচ্ছে তা ইসরোর কম্পিউটারে রেজিস্টার হচ্ছে। তারপরই সেটিকে নিয়ে পর্যালোচনা চলছে। সুতরাং প্রতিটা মুহূর্তেই আশঙ্কা থাকে, অভিযান সফল হচ্ছে কী হচ্ছে না।”

No comments

Powered by Blogger.