Header Ads

Header ADS

প্রয়াত কিংবদন্তি পেলে’, নেটদুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়া খবরে উদ্বিগ্ন ফুটবলপ্রেমীরা

প্রয়াত কিংবদন্তি পেলে। আপনার আত্মার শান্তি কামনা করি।’ রবিবার থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে এমনই কিছু পোস্ট।আর তারপর থেকেই শোকস্তব্ধ গোটা বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীরা। কিন্তু নেটদুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়া এমন খবর আসলে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।
সোমবারই ফুটবলের জাদুকরের তরফে এক প্রতিনিধি এমন গুজব উড়িয়ে দিয়ে জানিয়েছেন, পেলে বেঁচে আছেন এবং ভাল আছেন। তিনি বলেন, “যে সেলিব্রিটিদের মৃত্যুর ভুয়ো খবর রটে যায়, তাঁদের মধ্যে পেলেও ঢুকে পড়লেন। কিন্তু তিনি বেঁচে আছেন এবং সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন। ইন্টারনেটে ঘুরতে থাকা খবরগুলিতে কান দেবেন না।” প্রতিনিধির কথায় ফুটবলভক্ত তথা ক্রীড়ামহলে ফিরেছে স্বস্তি।
গত এপ্রিল মাসেও একবার এমনই খবর রটে গিয়েছিল। সে সময় মূত্রনালিতে সংক্রমণ নিয়ে তাঁকে প্যারিসের একটি হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল৷ তখনই জানা যায়, পেলের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটেছে। তারপরই নাকি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন ৭৮ বছরের ফুটবল সম্রাট। অনেক সংবাদমাধ্যমের শিরোনামেও উঠে আসে তাঁর মৃত্যুর খবর। কিন্তু পরে সংবাদমাধ্যমকে স্বয়ং পেলে প্যারিসের হাসপাতাল থেকে বার্তা দেন, “অ্যান্টিবায়োটিক ভাল কাজ করছে। আগের তুলনায় এখন আমি অনেক সুস্থ।” ফের একই খবর ছড়িয়ে পড়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছিলেন তাঁর অগণিত ভক্ত।
ইতিহাসে একমাত্র ফুটবলার হিসেবে তিনটি বিশ্বকাপ জিতেছেন পেলে। তাঁর একুশ বছরের কেরিয়ারে ১ হাজার ৩৬৩টি ম্যাচে ১,২৮১টি গোল করেছেন। এর মধ্যে ব্রাজিলের হয়ে ৯১টি ম্যাচে করেন ৭৭টি গোল করেছেন ফুটবলের কিংবদন্তি। ১৯৭০ সালে বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে ফিফা গোল্ডেন বল পুরস্কারও জেতেন তিনি। তবে বেশ কয়েকবছর ধরেই শরীর ভাল যাচ্ছে না পেলের৷ ২০১৫ সালে স্নায়ুর সমস্যায় মেরুদণ্ডে অস্ত্রোপচারও করা হয় তাঁর। কিডনি ও প্রস্টেটের সমস্যা নিয়ে একাধিকবার হাসপাতালে ভরতি হয়েছেন ফুটবলের কিংবদন্তি। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে মস্কোয় রাশিয়া বিশ্বকাপে হুইলচেয়ারে বসেই দেখা গিয়েছিল তাঁকে৷ আপাতত পেলের সুস্থতার খবর পেয়ে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন ফুটবলপ্রেমীরা৷  

No comments

Powered by Blogger.